বৃহস্পতিবার ১৮ এপ্রিল ২০২৪, বৈশাখ ৫ ১৪৩১

Aloava News24 | আলোআভা নিউজ ২৪

হাওর প্রয়াস ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে প্রাক-প্রাথমিক শিক্ষাকেন্দ্র প্রতিষ্ঠিত

মো. সাহিদ আহমেদ

প্রকাশিত: ১৯:০০, ২৫ এপ্রিল ২০২৩

আপডেট: ১২:১৩, ২৬ এপ্রিল ২০২৩

হাওর প্রয়াস ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে প্রাক-প্রাথমিক শিক্ষাকেন্দ্র প্রতিষ্ঠিত

ছবি: ইন্টারনেট

অসীম সোন্দর্যে ভরপুর হাওরবাসী তবে প্রকৃতির এ রূপের আড়ালে জড়িয়ে আছে কিছু সংগ্রামী মানুষের কঠিন জীবন। বছরের ছয়মাস পানি বন্দী হাওড় এলাকার এসব মানুষ জীবন-জীবিকার জন্য নিয়ত নিদারুণ সংগ্রাম করে থাকে। কিন্তু পড়াশুনার জন্য হাওড় এলাকার কোমলমতি শিশুরা যে সংগ্রাম করে, যে কষ্ট আর ঝুঁকি নিয়ে স্কুলে যায়, তা নজিরবিহীন। বর্ষাকালে বেশিরভাগ স্কুলগুলো পানিতে তলিয়ে যায়, অথবা বিচ্ছিন্ন দ্বীপের মত একাকী ভেসে থাকে। সে স্কুলে যেতে ভরা হাওড়ে উত্তাল ঢেউ পাড়ি দিয়ে ছোট ছোট নৌকায় করে শিশুরা স্কুলে যায়।

হাওর অঞ্চলের অসহায় গরিব দুঃখী মানুষের পাশে সর্বদাই মানবতার সেবায় নিয়োজিত আছে ‘হাওর প্রয়াস ফাউন্ডেশন’। তারই ধারাবাহিকতায় হাওর অঞ্চলের কোমলমতি শিশুদের শিক্ষাক্ষেত্রে অগ্রসর হওয়ার জন্য এই মহতি উদ্যোগ। ছোট ছোট ছেলে মেয়েরা যেন প্রাক-প্রাথমিক পর্যায়ে ভাল শিক্ষা পেতে পারে তার জন্য আমরা প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে প্রাক-প্রাথমিক শিক্ষাকেন্দ্র।

প্রথম স্কুল এর সূচনা হয়েছে সুনামগঞ্জ হাওর এলাকার ভাটিপাড়া নয়াপাড়ায়। এভাবে একে একে আরো ৮টি স্কুলের শুভ উদ্বোধন করা হয়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে, হাওর প্রয়াস ফাউন্ডেশনের সভাপতি প্রদ্যুৎ কুমার তালুকদার জানান, বিদ্যার্জনের জন্য হাওড় এলাকার ছোট্ট শিশুদের যে প্রতিকুলতা এবং বিপদসংকুল পথ পাড়ি দিতে হয় তা আর কোথাও দেখা যায়না। তাই এ অঞ্চলে প্রাথমিকে ঝরে পড়ার হার দেশের অন্যান্য অংশের তুলনায় তুলনামূলক বেশি। প্রাথমিকে ঝরে পড়ার আরও কারণ রয়েছে। হাওড় এলাকার বেশিরভাগ মানুষ দারিদ্রসীমার নিচে বাস করে। আমরা চাই শতপ্রতিকুলতার মধ্যেও এ অঞ্চলের শিক্ষার অগ্রগতি।

আশা করছি সবাই আমাদের শুভ উদ্যোগের পাশে থেকে আমাদের কাজ গুলোকে আরও সহজ করতে সহায়তা করবেন।

শেয়ার করুনঃ

সর্বশেষ

জনপ্রিয়