বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই ২০২৪, শ্রাবণ ৩ ১৪৩১

Aloava News24 | আলোআভা নিউজ ২৪

দেখে আসুন পঞ্চগড়ের কাঞ্চনজঙ্ঘা

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৭:৪০, ২০ অক্টোবর ২০২২

আপডেট: ১৭:৪১, ২০ অক্টোবর ২০২২

দেখে আসুন পঞ্চগড়ের কাঞ্চনজঙ্ঘা

ছবিঃ সংগৃহীত

বাংলাদেশের সবচেয়ে উত্তরের জেলা পঞ্চগড়। অপরূপ প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে ঘেরা এই পঞ্চগড়। শীতপ্রবণ এই পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়া গেলেই দেখা মিলবে পৃথিবীর তৃতীয় বৃহৎ পর্বতমালা কাঞ্চনজঙ্ঘা পর্বতশৃঙ্গ। অদূরে চোখে পড়বে হিমালয় এবং কাঞ্চনজঙ্ঘার মায়াবী রূপ!

বাংলাদেশ এবং ভারত সীমান্তের বুক দিয়ে বয়ে যাচ্ছে মহানন্দা নদী। নদীর তীর থেকেই দেখা যায় কাঞ্চনজঙ্ঘা পর্বতশৃঙ্গটির অপূর্ব দৃশ্য। কিন্তু কয়েক বছর ধরেই তেঁতুলিয়ার বিভিন্ন এলাকা থেকে খালি চোখেই দেখা মিলছে এই অপরূপ সৌন্দর্যে ঘেরা পর্বতশৃঙ্গটির। প্রকৃতিপ্রেমী এবং ভ্রমণ পিপাসুদের জন্য খুবই আকর্ষণীয় জায়গা এই কাঞ্চনজঙ্ঘা পর্বতশৃঙ্গ।

বাংলাদেশের সর্ব উত্তরের জেলা পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়া থেকে পৃথিবীর তৃতীয় উচ্চতম পর্বতশৃঙ্গ কাঞ্চনজঙ্ঘার (যার উচ্চতা ,৫৮৬ মিটার বা ২৮,১৬৯ ফুট) সৌন্দর্য অবলোকন করা যায়। তেঁতুলিয়া উপজেলা সদরে কুচবিহারের রাজা কতৃক নির্মিত ভিক্টোরিয়ান ধাঁচে বানানো একটি ঐতিহাসিক ডাকবাংলো রয়েছে। বর্তমানে ডাকবাংলোটি জেলা পরিষদের ব্যবস্থাপনায় আছে। ডাকবাংলোর কাছেই তেঁতুলিয়া উপজেলা পরিষদের উদ্যোগে পিকনিক স্পট নির্মাণ করা হয়েছে। মহানন্দা নদীর তীরে ভারতের সীমান্ত ঘেঁষা ডাকবাংলোর বারান্দা থেকে হেমন্ত শীতকালে কাঞ্চনজঙ্ঘার সৌন্দর্য উপভোগ করা যায়। বর্ষাকালে মহানন্দা নদী যখন পানিতে ভরে উঠে তখন কাঞ্চনজঙ্ঘাকে আরো বেশি অপূর্ব লাগে। পঞ্চগড়ের আরো বেশকিছু স্থান থেকে কাঞ্চনজঙ্ঘা পাহাড় দেখা গেলেও তেঁতুলিয়ার ডাকবাংলো সবচেয়ে ভাল জায়গা। এখান থেকে সবচেয়ে ভাল ভাবে দেখা যায়।

কখন দেখা যায়?

সারা বছর কাঞ্চনজঙ্ঘা দেখা যায় না। সাধারণত অক্টোবরের শুরু থেকে থেকে নভেম্বরের মাঝামাঝি সময় পর্যন্ত আকাশ মেঘহীন থাকলে দূরে বরফে ঢাকা কাঞ্চনজঙ্ঘা পাহাড়ের চূড়া দেখতে পাওয়া যায়। তাই কাঞ্চনজঙ্ঘা দেখতে যেতে চাইলে আপনাকে উপরোক্ত সময়ের ভিতর যেতে হবে এবং সময় আকাশ পরিস্কার থাকলে দেখা যাওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেশি থাকবে।

কিভাবে যাবেন

ঢাকা থেকে সরাসরি তেঁতুলিয়া যেতে চাইলে হানিফ বাসে যাওয়া যাবে। নন এসি বাস ভাড়া জনপ্রতি ,১৫০ টাকা। এছাড়া পঞ্চগড় হয়ে তেতুলিয়া যেতে পারবেন।

ঢাকার শ্যামলী, গাবতলী বাস টার্মিনাল মিরপুর থেকে নাবিল পরিবহন, হানিফ এন্টারপ্রাইস, তানযিলা ট্রাভেল, বরকত ট্রাভেল পঞ্চগড় যেতে পারবেন। ঢাকা থেকে পঞ্চগড় নন এসি বাস ভাড়া ৯০০-,১০০ টাকা এবং এসি বাস ভাড়া ,৩০০-,৯০০ টাকা।

ট্রেনে যেতে চাইলে ঢাকার কমলাপুর থেকে পঞ্চগড় এক্সপ্রেস, একতা দ্রুতযান এক্সপ্রেস ট্রেনে পঞ্চগড় আসতে পারেন। শ্রেণী অনুযায়ী ট্রেন টিকেটের ভাড়া জনপ্রতি ৫৫০ থেকে ১৯৪২ টাকা পর্যন্ত।

পঞ্চগড় থেকে তেঁতুলিয়ায় পথে সারাদিন নিয়মিত বিরতিতে লোকাল বাস চলাচল করে। বাসের টিকেটের মূল্য জনপ্রতি ৫০ থেকে ৬০ টাকা। পঞ্চগড় কেন্দ্রীয় বাসস্টেশন এবং চৌরঙ্গী মোড় থেকে পঞ্চগড়ের বিভিন্ন স্থান ঘুরে দেখার জন্য প্রাইভেট কার মাইক্রো ভাড়া করতে পারবেন। প্রাইভেট কার মাইক্রো রিজার্ভ করতে আনুমানিক ২০০০ থেকে ৩০০০ টাকা ভাড়া লাগবে।

কোথায় থাকবেন

তেতুলিয়ায় কাজী ব্রাদার্স হোটেল সীমান্তের পাড় নামে দুইটি আবাসিক হোটেল রয়েছে। এসব হোটেলে নন এসি রুম ভাড়া ৬০০-৮০০ টাকা এসি ডাবল বেডের ভাড়া ১০০০-১৫০০ টাকা।

মহানন্দা নদী তীরের ডাকবাংলোতে থাকতে চাইলে তেঁতুলিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছ থেকে অনুমতি নিতে হবে। ডাকবাংলোর প্রতি কক্ষের ভাড়া ৪০০ টাকা। বন বিভাগের রেস্টহাউস এবং বাংলাবান্ধা স্থলবন্দরের জেলা পরিষদের ডাক বাংলোতে পূর্ব অনুমতি সাপেক্ষ্যে থাকতে পারবেন।

এছাড়া পঞ্চগড়ের সাধারণ মানের আবাসিক হোটেলে ৫০০ থেকে ৮০০ টাকায় নন-এসি কক্ষে থাকতে পারবেন। ১০০০-১৫০০ টাকায় এসি কক্ষ ভাড়া করতে পারবেন।

 

এইচ এস কে

শেয়ার করুনঃ

সর্বশেষ

জনপ্রিয়